যাত্রাবাড়ী টু এয়ারপোর্ট কিভাবে যাবেন এবং দূরত্ব কত কিলোমিটার?

যাত্রাবাড়ী থেকে এয়ারপোর্ট বা এয়ারপোর্ট থেকে যাত্রাবাড়ী কত কিলোমিটার?

রাস্তা যানবাহনের ধরন অনুযায়ী কিলোমিটার কম বেসি হয়ে থাকে। তবে এক কথায় বলতে গেলে এয়ারপোর্ট টু যাত্রাবাড়ী বা যাত্রাবাড়ী টু এয়ারপোর্ট আপনাকে মাথায় রাখতে হবে ২২ কিলোমিটার। নরমালি ১৮-২২ কিলোমিটার বিভিন্ন রাস্তা অনুযায়ী।

AirPort To Jatrabari 18-22 Kilometer Distance
এয়ারপোর্ট থেকে যাত্রাবাড়ী ১৮-২২ কিলোমিটার দূরত্ব

যদি আপনি ঢাকায় নতুন হয়ে থাকেন, অথবা যদি ভেবে থাকেন যাত্রাবাড়ী থেকে এয়ারপোর্টের উদ্দেশ্যে যাবেন, তাহলে আপনাকে এই পোস্ট বা আর্টিকেলটি মনোযোগ দিয়ে পড়তে হবে।

সতর্ক নোটঃ ঢাকায় নতুন হয়ে থাকলে আপনি বিভিন্ন রকমের সমস্যায় পড়তে পারেন, যদি এমন হয় আপনি যাত্রাবাড়ী টু এয়ারপোর্ট যাবেন কিন্তু জানেন না কি গাড়ি দিয়ে যেতে হয়, বা ভাড়া কত? এমন হলে আপনি বড় ধরনের প্রতারণার শিকার হতে পারেন। কারণ আপনি যখন পথচারীদের জিজ্ঞেস করবেন কি গাড়ি দিয়ে যেতে হবে, এর ফলে পথচারী বোঝে যায় এই মানুষটি নতুন এসেছে ঢাকাতে। পথচারী যদি খারাপ দলের লোক হয়ে থাকে, তাহলে আপনি আর্থিক +দৈহিক দুটি সমস্যার সমক্ষীন হতে পারেন। তবে বর্তমানে এ ধরনের সমস্যার কথা একটু কম শোনা যায়। যদি আপনি সঠিক বাস গাড়িতে উঠেও পড়েন, সে ক্ষেত্রে গাড়ির কন্টাকদারকে যদি জিজ্ঞেস করেন ভাড়া কত? তাহলে গাড়ির লোকটি বুঝে যাবে আপনি ঢাকায় নতুন এসেছেন, সেজন্য আপনাকে বেশি ভাড়া গুনতে হতে পারে, তার মানে গাড়ির লোকটি আপনার কাছে ভাড়া বেসি চাইবে।

উপরোক্ত সমস্যা গুলো থেকে বাঁচার উপায় কি? চিন্তার কোন কারণ নেই, আমি আছি তো আপনার সাথে। সামনে এগিয়ে যান....

মূল টপিকঃ
যাত্রাবাড়ী থেকে এয়ারপোর্ট রুটে, বেশ কয়েকটি বাস গাড়ি চলাচল করে থাকে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলঃ বলাকা, রাইদা এবং তুরাগ। এমন বাস আরো রয়েছে, তবে বলাকা, তুরাগ এবং রায়দা বাস গাড়ি গুলো বেশি জনপ্রিয়।

যাত্রাবাড়ী টু এয়ারপোর্ট বলাকা বাস ভাড়াঃ যাত্রাবাড়ী থেকে এয়ারপোর্ট বলাকা বাসের মাধ্যমে যেতে চাইলে, আপনাকে ভাড়া গুনতে হতে পারে ৩৫ থেকে ৫০ টাকা।

বলাকা বাস রিভিউঃ এটি একটি লোকাল বাস, এই গাড়িতে সিটের থেকে ৩গুন বেসি প্যাসেঞ্জার উঠিয়ে থাকে, যার ফলে অনেক প্যাসেঞ্জার দাঁড়িয়ে থাকে। লোকাল বাস হওয়ার কারণে, এবং প্রচুর প্যাসেঞ্জার দাঁড়িয়ে থাকার কারণে, ঘামের দুর্গন্ধ থেকে শুরু করে পকেট মারজনিত সমস্যা পর্যন্ত হতে পারে। শুধু তাই নয়, এই বাসের পিছনের দিকে বা মাঝখানে বসলে, বাস থেকে নামার সময় অনেক কষ্ট করতে হতে পারে। যাত্রাবাড়ী থেকে এয়ারপোর্টে বলাকা বাস গাড়ির মাধ্যমে যেতে চাইলে, আপনি মহাখালী এবং কাকলি বনানীর মত জায়গা গুলো দেখতে পাবেন।

যাত্রাবাড়ী টু এয়ারপোর্ট তুরাগ বাস ভাড়াঃ যাত্রাবাড়ী থেকে এয়ারপোর্ট তুরাগ বাসের মাধ্যমে যেতে চাইলে, আপনাকে ভাড়া গুনতে হতে পারে ৩০ থেকে ৪৫ টাকা।

তুরাগ বাস রিভিউঃ এটি একটি লোকাল বাস, এই গাড়িতে সিটের থেকে ২গুন বেসি প্যাসেঞ্জার উঠিয়ে থাকে, তবে করোনা মহামারী আসার আগে পর্যন্ত তারা চেষ্টা করতো ৫গুন বেসি প্যাসেঞ্জার ওঠানোর জন্য। সার্ভিস খুব ই খারাপ, তবে করোনা মহামারীর পর থেকে এই গাড়িতে প্যাসেঞ্জার সংখ্যা কমে গেছে। বলাকার মত এই বাস গাড়িতেও প্যাসেঞ্জার দাঁড়িয়ে থাকে। লোকাল বাস হওয়ার কারণে এবং প্রচুর প্যাসেঞ্জার দাঁড়িয়ে থাকার কারণে, ঘামের দুর্গন্ধ থেকে শুরু করে পকেট মারজনিত সমস্যা পর্যন্ত হয়ে থাকে। শুধু তাই নয়, এই বাসেও বলাকার মত পিছনের দিকে বা মাঝখানে বসলে, বাস থেকে নামার সময় অনেক কষ্ট করতে হতে পারে। যাত্রাবাড়ী থেকে এয়ারপোর্টে তুরাগ বাস গাড়ির মাধ্যমে যেতে চাইলে, আপনি ঢাকার বেশ কিছু নামকরা জায়গা দেখতে পাবেন, যেমন খিলগাঁও, মালিবাগ রেলগেইট, রামপুরা টিভি সেন্টার, হাতিরঝিল, বাড্ডা, বাড়িধারা নতুন বাজার, যমুনা ফিউচার পার্ক, কুরিল এবং খিলক্ষেত নিকুঞ্জের মত জায়গা গুলো দেখতে পাবেন।

যাত্রাবাড়ী টু এয়ারপোর্ট রাইদা বাস ভাড়াঃ যাত্রাবাড়ী থেকে এয়ারপোর্ট রাইদা বাসের মাধ্যমে যেতে চাইলে, আপনাকে ভাড়া গুনতে হতে পারে ৪০ থেকে ৬০ টাকা।

রাইদা বাস রিভিউঃ এটি একটি লোকাল বাস, তবে এই লোকাল বাস গাড়িটি অন্য লোকাল বাস থেকে কিছুটা ভালো। এই গাড়িতে সিটের সমান প্যাসেঞ্জার উঠিয়ে থাকে, তবে করোনা মহামারী আসার আগে পর্যন্ত প্যাসেঞ্জার পূর্ন হয়ে গেলে তারা তাদের গাড়ির দড়জা বন্ধ করে দিতো। তবে করোনা মহামারীর পর থেকে তারা তাদের আগের সার্ভিসে থাকতে পারেনি, এখন মাঝে মাঝে দেখতে পাওয়া যায় কিছু পেসেন্জার দাড়িয়ে থাকে, তবে এটার সংখ্যা অনেকটা কম। তবে গেট লক করতে তেমন একটা দেখা যায় না। যাত্রাবাড়ী থেকে এয়ারপোর্টে রাইদা বাস গাড়ির মাধ্যমে যেতে চাইলে, আপনি ঢাকার বেশ কিছু নামকরা জায়গা দেখতে পাবেন, যেমন খিলগাঁও, মালিবাগ রেলগেইট, রামপুরা টিভি সেন্টার, হাতিরঝিল, বাড্ডা, বাড়িধারা নতুন বাজার, যমুনা ফিউচার পার্ক, কুরিল এবং খিলক্ষেত নিকুঞ্জের মত জায়গা গুলো দেখতে পাবেন।

আরও কোন তথ্য জানতে চাইলে এখনি কমেন্ট করুন, আমি চেষ্টা করবো দূত রিপ্লাই দেওয়ার জন্য। ধন্যবাদ

Enjoyed this article? Stay informed by joining our newsletter!

Comments

You must be logged in to post a comment.

Related Articles